চা বিক্রেতা বাবুল মাতুব্বরের হত্যাকারীদের বিচার দাবি চার সংগঠনের

চা বিক্রেতা বাবুল মাতুব্বরের হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করে বিচারের দাবি জানিয়েছে ঐক্যবদ্ধভাবে রাজনৈতিক আন্দোলনকারী চার সংগঠন। মঙ্গলবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত এক সমাবেশে এ দাবি জানানো হয়। জাতীয় মুক্তি কাউন্সিল, জাতীয় গণতান্ত্রিক গণমঞ্চ, নয়া গণতান্ত্রিক গণমোর্চা, জাতীয় গনফ্রন্ট এ সমাবেশের আয়োজন করে।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় মুক্তি কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল হাকিম, জাতীয় গণফ্রন্টের সমন্বয়ক টিপু বিশ্বাস, জাতীয় গণতান্ত্রিক গণতান্ত্রিক গনমঞ্চের মাসুদ খান, নয়া গণতান্ত্রিক গণমোর্চার সভাপতি জাফর হোসেন প্রমুখ।

134126_1

সমাবেশে বক্তারা বলেন, গত ফেব্রুয়ারি শাহ আলী থানার গুদারাঘাট এলাকায় একদল পুলিশ চা বিক্রেতা বাবলু মাতুব্বরের কাছে চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় এক পর্যায়ে পুলিশ লাঠি দিয়ে কেরোসিনের ষ্টোভে সজোরে আঘাত করলে কেরোসিনসহ বাবুলের সারা শরীরে আগুন লেগে যায়। মারাত্মকভাবে অগ্নিদগ্ধ হওয়ায় চা বিক্রেতা পরদিন ৪ ফেব্রুয়ারি হাসপাতালে মারা যান।

বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে আজ জীবন গরিবের জন্য নয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী একে বিচ্ছিন্ন ঘটনা বলেছেন। কিন্তু এটা যে কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়, তা জনগণ বিশেষ করে মেহনতি গরীব জনগণ তা টের পাচ্ছে।

পুলিশের চাঁদাবাজি, আটকাবস্থায় নির্যাতন, বন্দুকযুদ্ধের নামে হত্যা বন্ধ করার দাবিও জানান বক্তারা।

প্রসঙ্গত, গত ৩ ফেব্রুয়ারি রাতে শাহ আলী থানার গুদারাঘাট এলাকায় চা বিক্রেতা বাবলু মাতুব্বরের কাছে চাঁদা দাবি করে একদল পুলিশ সদস্য। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় পুলিশ লাঠি দিয়ে কেরোসিনের স্টোভে সজোরে আঘাত করলে বাবুলের সারা শরীরে আগুন লেগে যায়। পরে মারাত্মকভাবে অগ্নিদগ্ধ হয়ে ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৪ ফেব্রুয়ারি মারা যান তিনি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*

Latest from নির্বাচিত খবর

গো টু টপ