নারী মুক্তির অগ্রদূত ক্লারা জেটকিন

৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস। নারী দিবস বা নারী আন্দোলনের কথা এলেই সবার আগে যার নাম আসে তিনি হলেন মার্কসবাদী জার্মান সমাজতান্ত্রিক নেত্রী ক্লারা জেটকিন। যার হাত ধরেই ১৯১০ সালে কোপেনহোগেনে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় নারী সম্মেলন ৮ মার্চ হয়ে উঠেছিল আন্তর্জাতিক নারী দিবস।

নারী অধিকার আন্দোলনের পুরোধা ক্লারা জেটকিনের জন্ম হয়েছিল নারী আন্দোলনের একদম শুরুর দিকে। ১৮৫৭ সালের ৫ জুলাই জার্মানির ওয়াইডোরায়ু’র সাক্সোনি প্রদেশে। শৈশবে নাম ছিল ক্লারা আইজেনার। ক্লারা জেটকিনের বাবার নাম ছিল গর্টফ্রেড আইজেনার আর মা জসপিন ভিটেইল। তখনকার দিনে জার্মান মেয়েদের লেখাপড়ার তেমন অবাধ সুযোগ সৃষ্টি হয়নি।
মানুষের প্রতি তার অগাধ ভালোবাসা, প্রখর বুদ্ধিমত্তা, সাংগঠনিক দক্ষতা ও চিন্তাভাবনার দিক থেকে গভীর বিশ্লেষণী এবং প্রচন্ড সাহসী ছিলেন ক্লারা। ১৮৭৪ সালের দিকে জার্মানির নারী আন্দোলন ও শ্রম আন্দোলনের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন। তারুণ্য উদীপ্ত একুশ বছর বয়সেই ১৮৭৮ সালে সভ্য হন ‘জার্মান সোস্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টি’র। কিছু সময় পর তার পরিচয় হয় রাশিয়ান বিপ্লবী ওসিপ জেটকিনের সঙ্গে। দু’জন বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।বুদ্ধিবৃত্তিক সৃষ্টিশীল চর্চার মধ্য দিয়েও সমাজের ভেতর যে একটা সংস্কৃতিগত প্রগতিশীল রূপান্তর আনা যেতে পারে সে ব্যাপারেও ক্লারা জেটকিন বেশ সচেতন প্রয়াস নিয়েছিলেন।

বিষয় বস্তু:

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*

Latest from নির্বাচিত লেখা

labour_2391847f

মে দিবসের ইতিকথা

‘তারাই মানুষ, তারাই দেবতা, গাহি তাহাদেরি গান, তাদেরি ব্যথিত বক্ষে পা ফেলে
গো টু টপ