সুন্দরবন রক্ষায় মৌলিক বাঙলা’র পদযাত্রায় পুলিশের বাধা

পুলিশি হামলা ও বাধার মুখে সুন্দরবন ধ্বংস করে রামপালে কয়লাভিত্তিক তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের বিরুদ্ধে মৌলিক বাঙলা’র পদযাত্রা কর্মসূচি পালিত হয়েছে। রবিবার (১৭ এপ্রিল) সকাল সাড়ে দশটায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ করেন।

কর্মসূচির আয়োজকরা জানান, সকাল সাড়ে এগারোটায় সমাবেশ শেষে পদযাত্রা শুরু করলে পুলিশ বিভিন্ন অজুহাতে সেখানেই তাদের আটকে দেওয়ার চেষ্টা করে। পুলিশি বাধার মুখে নির্ধারিত রুট প্রেস ক্লাব, শাহবাগ, কাওরান বাজার এর রাস্তা ছেড়ে পদযাত্রা দোয়েল চত্ত্বরের দিকে এগিয়ে যায়। এরপরও জাতীয় শহীদ মিনারের দিকে যাওয়ার পথে দোয়েল চত্ত্বরে আরেক দফা বাধার মুখে পড়ে পদযাত্রা।

আয়োজকরা আরও জানান, এরপর সেখান থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে পথসভার করার সময় পুলিশ তাদের উদ্দেশে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করে। এরপর মাইক ভাঙচুর, বাংলাদেশের মানচিত্র সম্বলিত পোস্টার পায়ের তলায় ফেলে পিষ্ঠ করে। এ সময় মৌলিক বাঙলার নেতাকর্মীরা ক্ষুব্ধ হয়ে ‍ওঠলে পুলিশ তাদের ওপর হামলা চালায়।

12973496_1013140758770137_9160585419890764036_o

এ সময় পুলিশের হামলার শিকার হন, সংগঠনের আহ্বায়ক কবি ও লেখক শ্মশান ঠাকুর, কেন্দ্রীয় নেতা মেহরাপ পিয়াস, কেন্দ্রীয় সংঘটক চলচ্চিত্রকার অশোক বসাক, সভাপতি কবি জাহিদ জগৎ সহ আরও অনেকে।

হামলার প্রতিবাদে তাৎক্ষণিক প্রতিবাদী মিছিল ও অপরাজেয় বাংলার সামনে সমাবেশ করা হয়। মৌলিক বাঙলার পদযাত্রা’য় হামলার প্রতিবাদে বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক ও ছাত্র সংগঠনগুলো একাত্মতা প্রকাশ করে করে প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন।

সমাবেশে জাহিদ জগৎ বলেন, সরকারের অর্থমন্ত্রী বলেছেন সুন্দরবনের ক্ষতি হলেও নাকি সরকারের কিছু করার নেই। সরকারের কিছু করার না থাকলেও জনগণের অনেক কিছু করবার আছে। জনগণ চাইলে মুহুর্তেই রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র উৎখাত করে দিতে পারে। সুতরাং হামলা, মামলা দিয়ে জনগণকে দমিয়ে রাখা যাবে না।

সুন্দরবন তথা জাতীয় স্বার্থ রক্ষায় জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রতিবাদ গড়ে তোলার আহ্বান জানান তিনি। সূত্র: প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*

Latest from নির্বাচিত খবর

গো টু টপ