তনু হত্যার বিচারের দাবিতে ২৫ এপ্রিলের হরতাল সফল করতে মাঠে ছাত্র নেতারা

দ্বন্দ্ব ডেস্ক

কুমিল্লার ভিক্টোরিয়া কলেজ ছাত্রী সোহাগী জাহান তনু হত্যার সুষ্ঠু বিচার ও জড়িতদের গ্রেফতারের দাবিতে আগামী ২৫ এপ্রিল সারাদেশে আধাবেলা হরতাল ডেকেছে প্রগতিশীল ছাত্রজোট ও সাম্রাজ্যবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্য। হরতাল সফলভাবে পালন করার জন্য ইতোমধ্যে দেশব্যাপী প্রচারণায় নেমেছেন উভয়জোটের নেতাকর্মীরা। মতবিনিময় করেছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও জোটের সঙ্গে। সমর্থন পেয়েছেন গণতান্ত্রিক বাম মোর্চা, সিপিবি-বাসদ ও চার সংগঠনের রাজনৈতিক জোটের।

রবিবার (১৭ এপ্রিল) রাজধানীর বাংলাবাজার, লক্ষ্মীবাজার, রায়সাহেব বাজার এলাকায় প্রগতিশীল ছাত্রজোট ও সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী ছাত্র ঐক্যের নেতা-কর্মীরা লিফলেট হাতে প্রচারণা চালান। মঙ্গলবার ( ১৯ এপ্রিল ) সারাদিন রমনা, মতিঝিল,পল্টন, গুলিস্তান এলাকায় কেন্দ্রিয়ভাবে হরতালের প্রচার ও গণসংযোগ করা হয়েছে ।  বুধবারও (২০ এপ্রিল) রাজধানীর ধানমন্ডি, মোহাম্মদপুর, শ্যামলী ও গাবতলি এলাকায় প্রচারাভিযান চলে।

12987142_508705522648072_5715386963612351016_n

হরতাল সফল করতে এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, পলাশী, আজিমপুর, ইডেন কলেজ, নিউমার্কেট, নীলখেত, কাঁটাবন ও হাতিরপুর এলাকাতেও প্রচারনা চালানো হয়।

প্রচারনার পাশাপাশি বিভিন্ন রাজনৈতিক, যুব ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সঙ্গে মতবিনিময় চালিয়ে যাচ্ছে দুই ছাত্র জোট। এরই মধ্যে গণতান্ত্রিক বাম মোর্চা, সিপিবি-বাসদ, জাতীয় মুক্তি কাউন্সিল, জাতীয় গণতান্ত্রিক গণমঞ্চ, জাতীয় গণফ্রন্ট ও নয়া গণতান্ত্রিক গণমোর্চা ২৫ এপ্রিলের হরতালকে সমর্থন দিয়েছে। আরও বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক দল, সামাজিক- সাংস্কৃতিক-নারী ও যুব সংগঠনের সঙ্গে পর্যায়ক্রমে মতবিনিময় সভা আয়োজন করা হবে বলে জানিয়েছেন নেতৃবৃন্দরা।

২৫ এপ্রিলের হরতালে সমর্থন দিয়েছেন তেল-গ্যাস-খনিজসম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব আনু মুহাম্মদ। ছাত্রদের ডাকা হরতালের প্রতি সমর্থন জানিয়ে তিনি লিখেছেন, যতো দিন যাচ্ছে ততোই তনু তদন্ত নিকটবর্তী হচ্ছে ত্বকী আর সাগর-রুনীর। এটা হচ্ছে স্পষ্ট একটি মডেল যেখানে ‘খুনি বা দুর্বৃত্তদের ধরা যাবে না’ সরকারের এরকম সিদ্ধান্ত নেবার পর নাটক শুরু হয়। ধর্ষক ও খুনিদের পক্ষে সরকারের এরকম অবস্থানের কারণেই অবিরাম খুন, গুম, ধর্ষণ, নির্যাতন ঘটে চলেছে। অন্যদিকে বিনা বিচারে আটক, ক্রসফায়ার নামক খুন, সাদা পোশাকে তুলে নেয়া, গ্রেফতার ও রিমান্ড বাণিজ্য আর সেই সাথে মিথ্যা গল্প বানানো তৈরি করেছে এক ভয়ংকর পরিবেশ। পাশাপাশি কতিপয় দেশি বিদেশি গোষ্ঠীর মুনাফার উন্মাদনায় উন্নয়নের নামে দানবীয় সব প্রকল্পের শিকার হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। এর প্রতিবাদ করতে গিয়ে খুন হচ্ছে মানুষ, মিছিল করতে গেলেও পুলিশী আক্রমণ। এরকম অবস্থায় আগামী ২৫ এপ্রিল তনু হত্যাসহ অব্যাহত খুন, ধর্ষণ, গুম, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রগতিশীল ছাত্র জোট ও সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী ছাত্র ঐক্য আহুত হরতাল হয়ে ওঠছে এক সম্মিলিত প্রতিবাদের ডাক। এই ডাকের সাথে পূর্ণ সংহতি জানাই।

উল্লেখ্য, গত ৭ এপ্রিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঘেরাও কর্মসূচি পালন করে প্রগতিশীল ছাত্র জোট ও সাম্রাজীবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্য। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি চত্বর থেকে সংগঠন দুটির কয়েকশ নেতা-কর্মী মিছিল নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উদ্দেশে রওনা হন। তিন নেতার মাজার ও দোয়েল চত্বর এলাকায় দু’দফা পুলিশের ব্যারিকেডের মুখে পড়েন তারা।  কিন্তু ওই ব্যারিকেড ভেঙে সামনে এগিয়ে যান। তবে হাই কোর্ট মাজার এলাকায় ফের তাদের ব্যারিকেড দিয়ে আটকে দেয় পুলিশ। পরে ওইখানে বসে সমাবেশ করেন সংগঠন দুটির নেতারা। সমাবেশে ২৫ এপ্রিল সারা দেশে অর্ধ দিবস হরতাল পালনের ঘোষণা দেওয়া হয়।

গত ২০ মার্চ রাত ১০টায় কুমিল্লা ময়নামতি সেনানিবাসের অলিপুর এলাকায় একটি কালভার্টের কাছ থেকে পুলিশ তনুর মরদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় বিক্ষোভে ফেটে পড়ে সারাদেশের মানুষ। ঘটনার প্রায় একমাস হতে চললেও পুলিশ এখনও হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*

Latest from নির্বাচিত লেখা

labour_2391847f

মে দিবসের ইতিকথা

‘তারাই মানুষ, তারাই দেবতা, গাহি তাহাদেরি গান, তাদেরি ব্যথিত বক্ষে পা ফেলে
গো টু টপ